ইনকগনিটো মোডে পর্ন দেখছেন? গুগলের নজরদারি রয়েছে সেখানেও

ফেসবুকে শেয়ার করুন টুইট শেয়ার রেডিট কমেন্ট
ইনকগনিটো মোডে পর্ন দেখছেন? গুগলের নজরদারি রয়েছে সেখানেও

পর্ন দেখার সময় ব্রাউজারে ‘ইনকগনিটো মোড' ব্যবহার করেন? এই মোড ব্যবহার করে নিজের ব্যাক্তিগত ব্রাউজিং Google ও Facebbook এর মতো কোম্পানিগুলির কাছ থেকে সুরক্ষিত রাখার চেষ্টা করছেন? কম্পিউটার ও মোবাইল থেকে ইনকগনিটো মোড ব্যবহার করে ব্রাউজিং করলেও Facebook, Google ও Oracle এর কাছে সেই ব্রাউজিং তথ্য পৌঁছে যাচ্ছে। সম্প্রতি Microsoft, কার্নগি মেলন বিশ্ববিদ্যালয় ও পেনসিলভেনিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌথ গবেষনায় এই তথ্য উঠে এসেছে। “webXray” নামে একটি টুল ব্যবহার করে এই গবেষনায় জাজা গিয়েছে 22,484 টি পর্ন ওয়েবসাইটের 93 শতাংশ গ্রাহকের ব্রাউজিং তথ্য ট্র্যাক করে ও অন্য কোম্পানিকে সেই তথ্য বিক্রি করে ওয়েবসাইটগুলি।

“হাতে গোনা কিছু কোম্পানি এই কাজ এই ওয়েবসাইটগুলি ট্র্যাক করে।” জানিয়েছেন এই গবেষনার সাথে যুক্ত এক ব্যাক্তি। তিনি জানিয়েছেন 230 টি এমন কোম্পানির সন্ধান পাওয়া গিয়েছে যারা আমাদের ব্রাউজিং ট্র্যাক করেছে।

এর মধ্যে Google 74 শতাংশ প্ররনোগ্রাফিক ওয়েবসাইট ট্র্যাক করেছে। Oracle 24 শতাংশ ও Facebook 10 শতাংশ পর্নোগ্রাফিক ওয়েবসাইট ট্র্যাক করেছে। পর্ন ট্র্যাক করার জন্য সবথেকে জনপ্রিয় ট্র্যাকারগুলি হল ExoClick (40 শতাংশ), JuicyAds(11 শতাংশ) আর EroAdvertising (9 শতাংশ)।

graph full Graph

এই গবেষনার শুরুতেই ‘জ্যাক' নামের একটি প্রোফাইল তৈরী করা হয়েছে এবং ল্যাপটপ থেকে বিভিন্ন পর্নোগ্রাফিক ওয়েবসাইট খুলতে শুরু করা হয়েছে। ব্রাউজিং এর সময় ব্রাউজারে ইঙ্কগনিয়টো মোড ওপেন করে নিয়েছে ‘জ্যাক'।

কিন্তু এর পরেও ‘জ্যাক' এর ল্যাপটপে থার্ড পার্টি ট্র্যাকার তার যৌন পছন্দ ট্র্যাক করা শুরু করেছিল। গবেষনায় জানা গিয়েছে প্রত্যেক গ্রাহকের এই ধরনের প্রোফাইল তৈরী করে তা বিক্রি করে এই ধরনের ট্র্যাকিং কোম্পানিগুলি।

তবে এই এই বিষয় সম্পর্কে কখনই জানতে পারছে না ‘জ্যাক।'

third parties full aaa

“জ্যাক সব সময় মনে করছে ইনকগনিটো মোডে ব্রাউজ করার জন্য তার ব্রাউজিং এর তথ্য সম্পূর্ণ গোপন থাকছে। এর ফলে নিজের তথ্যের গোপনীয়তা সম্পর্কে সম্পূর্ণ ভুল্ক ধারনা নিয়ে ইন্টারনেটে পর্ন ব্রাউজ করে চলেছে সে।” জানিয়েছেন গবেষকরা।

তবে এই ঘটনা শুধুমাত্র জ্যাক নয়, প্রতিদিনের জীবনে আমাদের সাথে এই ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছেন গবেষকরা।

প্রতি মিনিটে Netflix, Amazon ও Twitter এর মোট ট্রাফিকের বেশি মানুষ ইন্টারনেটে পর্ন দেখেন। সম্প্রতি এক পর্ন ওয়েবসাইট জানিয়েছিল “ইন্টারনেটে ট্রান্সফার হওয়া মোট ডেটার 30 শতাংশের বেশ ডেটা পর্ন ওয়েবসাইট থেকে ট্রান্সফার হয়।”

কমেন্ট

প্রযুক্তির সাম্প্রতিক খবর আর রিভিউস জানতে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube.

পড়ুন: English
 
 

বিজ্ঞাপন

 
© Copyright Red Pixels Ventures Limited 2019. All rights reserved.